এসো আরবী শিখি নোট ১-১-৪

এসো আরবী শিখি কিতাবের প্রথম খণ্ডের প্রথম অধ্যায়ের চতুর্থ পাঠের লিখিত অংশ বা নোট। এই লেখাটি তাদের জন্য উপকারী হবে, যারা এই পাঠের তৈরিকৃত ভিডিওটি দেখেছেন। যারা ভিডিওটি দেখেন নি, তারা নিচের লিঙ্কে ক্লিক করে ভিডিওটি দেখে নিন।

ভিডিও

 

এই পাঠেঃ

ال-যুক্ত শব্দ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।

ال-যুক্ত শব্দের যে বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে তা হলঃ

কেন শব্দের শুরুতে ال যুক্ত করা হয়?

কোন ধরণের শব্দের শুরুতে ال যুক্ত করা হয়?

ال যুক্ত শব্দের উচ্চারণ ও হরকত কেমন হয়?

এছাড়া সিফাতের শব্দ সিফাত না হওয়ার কারণ ও ইসমুল ইশারার অর্থের ভিন্নতা নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে এই লেখাটিতে।

 

শব্দের শুরুতে ال যুক্ত করার কারণঃ

একটি অনির্দিষ্ট শব্দকে নির্দিষ্ট করার জন্য শব্দের শুরুতে ال যুক্ত করা হয়। সাধারণ অবস্থায় একটি আরবী শব্দ অনির্দিষ্ট একক বুঝায়।

যেমন, كتاب শব্দটির অর্থ একটি বই। অনির্দিষ্টভাবে যে কোন একটি বই বুঝাচ্ছে। এই শব্দটির শুরুতে ال যুক্ত করা হলে শব্দটি الكتاب হয়, যার অর্থ বইটি। এটি নির্দিষ্ট একটি বইকে বুঝায়।

 

মারেফানাকেরার পরিচয়ঃ

যে ইসম নির্দিষ্ট ব্যক্তি বা বস্তুকে বুঝায় তাকে  مَعْرِفَةٌ  (মা’রেফা) বলে।

যে ইসম অনির্দিষ্ট ব্যক্তি বা বস্তুকে বুঝায় তাকে  نَكِرَة (নাকেরা) বলে।

যেমন, كتاب শব্দটি নাকেরা এবং الكتاب শব্দটি মারেফা।

 

মারেফা নাকেরা

 

যে ধরণের শব্দে ال যুক্ত করা যায়ঃ

যে সকল শব্দ অনির্দিষ্ট থেকে নির্দিষ্ট হতে পারে, সে সকল শব্দের শুরুতে ال যুক্ত করা যায়।

যেমনঃ-  ইসমুল ইশারা, প্রশ্নবোধক শব্দ, হারফুন নিদা, দ্বমীর, নির্দিষ্ট কোন নাম ইত্যাদির শুরুতে ال যুক্ত করা যায় না।

ইসমুল ইশারা, দ্বমীর, কোন ব্যক্তি বা স্থানের নাম যেহেতু এমনিতেই নির্দিষ্ট, তাই নির্দিষ্ট করার জন্য এগুলোর শুরুতে ال যুক্ত করা যাবে না। এমনিভাবে হারফুন নিদা ও প্রশ্নোত্তরের জন্য ব্যবহৃত শব্দের শুরুতে ال যুক্ত করা যাবে না। কেননা, এ সকল শব্দ নির্দিষ্ট বা অনির্দিষ্ট কিছুই হতে পারে না।

 

الযুক্ত শব্দের উচ্চারণ হরকতঃ

শুরুর আলিফের উচ্চারণঃ

ال-যুক্ত শব্দের পূর্বে অন্য কোন শব্দ থাকলে আলিফটি উচ্চারিত হয় না।

যেমন, ذَلِكَ الْكِتَابُ পড়ার সময় الْكِتَابُ এর শুরুর আলিফটি উচ্চারিত হবে না। কেননা, এর পূর্বে অন্য একটি শব্দ রয়েছে। পক্ষান্তরে اَلْكِتَابُ جَدِيْدٌ পড়ার সময় الْكِتَابُ এর শুরুর আলিফটি উচ্চারিত হবে। কেননা এর পূর্বে অন্য কোন শব্দ নেই।

শুরুর লামের উচ্চারণঃ

ال-যুক্ত শব্দে লাম উচ্চারণ করা হবে কিনা তা নির্ভর করে লাম হরফের পরবর্তী হরফের উপর।

  • নীচের হরফগুলোর শুরুতে ال যুক্ত হলে লাম হরফটি স্পষ্ট ও আলাদা উচ্চারিত হয়।
    أ ، ب – ج – ح – خ – ع – غ – ف – ق – ك – ل – م – و – ه – ي
  • নীচের হরফগুলোর শুরুতে ال যুক্ত হলে লাম হরফটি উচ্চারিত হয় না বরং লামের পরবর্তী হরফটি তাশদীদযুক্ত রূপে উচ্চারিত হয়।

ت – ث – د – ذ – ر – ز – س – ش – ص – ض- ط – ظ –ن

 

 الযুক্ত শব্দের শেষ হরফঃ

ال-যুক্ত শব্দের শেষ হরফে কখনো তানবীন হয় না।


 

আপনার সন্তান বা ছোট ভাইয়ের বয়স কি ১৭ বছরের কম?

আপনি কি তাকে আলেমে দ্বীন বানাতে চান?

তাহলে এক বছরের জন্য আমার দায়িত্বে দিতে পারেন।

ইনশাআল্লাহ বছরটি তার জীবনের শ্রেষ্ঠ বছর হবে এবং দ্বীনী ও দুলিয়াবী জ্ঞান অর্জনের পথে সে আত্নবিশ্বাসের সাথে অগ্রসর হতে পারবে। 

বিস্তারিত জানতে ০১৯২৮৮৫১১৪৩ নাম্বারে কল করুন।  (৩১।৫।২১)


 

সিফাতের শব্দ যখন সিফাত হয় নাঃ

যে শব্দের দ্বারা কোন ব্যক্তি বা বস্তুর দোষ, গুণ, অবস্থা প্রকাশ করা হয় তাকে সিফাত বলে।

সিফাতের তরজমা মাওসূফের আগে করতে হয়।

কিন্তু কখনো কখনো দেখা যায়, যে শব্দের দ্বারা গুণ প্রকাশ করা হচ্ছে তার তরজমা পরে করা হচ্ছে। কেননা গুণ প্রকাশ করলেই কোন শব্দ সিফাত হয় না। যে শব্দের গুণ প্রকাশ করা হচ্ছে তার সাথে মারেফা-নাকেরার দিক থেকে মিল থাকতে হয়। যে শব্দের গুণ প্রকাশ করা হচ্ছে সে শব্দ মারেফা এবং যে শব্দের দ্বারা গুণ প্রকাশ করা হচ্ছে সে শব্দ নাকেরা হলে গুনপ্রকাশের শব্দকে সিফাত বলা যাবে না।

 

মাওসুফ সিফাতের মধ্যে যে বিষয়গুলোতে মিল থাকেঃ

মুযাক্কার-মুআন্নাছ

শেষ হরফের হরকত

মা’রেফা-নাকেরা

(আরেকটি বিষয় রয়েছে যা আমরা সামনে জানব ইনশাআল্লাহ্‌)

 

ইসমুল ইশারার অর্থের ভিন্নতাঃ

ইসমুল ইশারা هذا এবং هذه এর পর ال-যুক্ত শব্দ থাকলে অর্থ হয় ‘এই’ আর ال-যুক্ত শব্দ না থাকলে অর্থ হয় ‘ইহা’। এমনিভাবে ذلك এবং تلك এর পর ال-যুক্ত শব্দ থাকলে অর্থ হয় ‘ঐ’ এবং ال-যুক্ত শব্দ না থাকলে অর্থ হয় উহা।

 

প্রশ্নমালা

১. শব্দের শুরুতে কেন ال যুক্ত করা হয়?

২.মারেফা-নাকেরা কাকে বলে?

৩.কোন ধরণের শব্দের শুরুতে ال যুক্ত করা হয়?

৪. ال-যুক্ত শব্দের শুরুর আলিফ কখন উচ্চারিত হয় এবং কখন উচ্চারিত হয় না?

৫. ال-যুক্ত শব্দের শুরুর লাম কখন উচ্চারিত হয় এবং কখন উচ্চারিত হয় না?

৬. সিফাতের শব্দ কখন সিফাত হিসেবে গণ্য হয় এবং কখন হয় না ?

৭.  মাওসূফ-সিফাতের মধ্যে কী কী বিষয়ে মিল থাকে?

৮.  আমাদের পঠিত ইসমুল ইশারাগুলোর অর্থ কখন ‘ইহা-উহা’ হয় এবং কখন ‘এই-ঐ’ হয়?

 

লেখাটির পিডিএফ ডাউনলোড করতে ইচ্ছুক হলে নিচের লিঙ্কে ক্লিক করুন।

এসো আরবী শিখি নোট পিডিএফ ১-১-৪

Facebook Comments

বিভাগিয় প্রধানঃ (মাদানী নেসাব) মাদরাসাতুল কাসেম আল-ইসলামিয়া, গোলাপবাগ, ঢাকা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Related Posts

Begin typing your search term above and press enter to search. Press ESC to cancel.

Back To Top
error: Content is protected !!